BIGtheme.net http://bigtheme.net/ecommerce/opencart OpenCart Templates
সংবাদ শিরোনাম
Home / প্রথম পাতা / ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর ক্ষতিকর প্রভাব থেকে মুক্ত করতে যুবাইদিয়া মাদ্রাসায় দোয়ার অনুষ্ঠান

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর ক্ষতিকর প্রভাব থেকে মুক্ত করতে যুবাইদিয়া মাদ্রাসায় দোয়ার অনুষ্ঠান

সীতাকুণ্ড টাইমস ডেস্ক ঃ
গভীর বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ যেন বাংলাদেশে তেমন ক্ষতি করতে না পারে সে জন্য আজ সকাল ১১টায় সীতাকুণ্ড পৌরসদরস্থ যুবাইদিয়া ইসলামিয়া মহিলা ফাজিল মাদ্রাসায় এক বিশেষ দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।
ছাত্র ছাত্রী ও শিক্ষক শিক্ষিকাদের সাথে নিয়ে অল্লাহ দরবারে ভুল ক্রুটি ক্ষমা চেয়ে ও বাংলাদেশে যেন প্রবল ঘূর্ণিঝড় তেমন একটা ক্ষতি করতে না পারে তার জন্য বিশেষ মুনাজাত পরিচালনা করেছেন মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা নুরুল কবির। দোয়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মাওলানা হারুন অর রশীদ, মাওলানা কামরুল হাসান, সিনিয়র শিক্ষক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বিএসসি, প্রভাষক রাশেদা আখতার ও পারভীন আখতার প্রমুখ।
মাদ্রাসার অধ্যক্ষ শিক্ষার্থীদের ঘূর্ণিঝড়ে করণীয় সম্পর্কে সরকারের দিক নির্দেশনা বিশেষ ভাবে আলোচনা করেন এবং সবাইকে সর্তক থাকার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন।

উপজেলা প্রশাসন ঃ এদিকে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর ক্ষতিকর প্রভাব মোকাবেলায় সীতাকুণ্ড উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। উপকূলের সর্বত্র মাইকিং করে জনসাধারণকে সতর্ক করছে ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কেন্দ্রের (সিপিপি) স্বেচ্ছাসেবকরা।

এ বিষয়ে জনগণকে সচেতন করে তাদের জানমাল নিরাপদে রাখতে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে মাইকিং করা হচ্ছে। উপজেলায় ৬০টি সাইক্লোন শেল্টার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়া প্রয়োজনে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং সরকারি অবকাঠামো দুর্যোগকালীন সময়ে আশ্রয় কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে। দুর্যোগে আক্রান্ত হলেও সবগুলো সাইক্লোন শেল্টারে পর্যাপ্ত খাদ্য মজুদ রাখা হয়েছে বলে জেলা প্রশাসক জানান। ঘূর্ণিঝড় বিষয়ে জনসাধারণকে অবগত করার জন্য ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট স্থানসমূহে বিশেষ পতাকা টানানো হয়েছে। বন্ধ রাখা হয়েছে চট্টগ্রাম-কুমিরা ঘাট। কুমিরা থেকে সন্দ্বীপে এবং সন্দ্বীপ থেকে যাত্রীবাহী কোন বোট ছেড়ে যায়নি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিল্টন রায় সকালে কুমিরা-সন্দ্বীপ ঘাটসহ বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করে বলেছেন, দূর্যোগ মোকাবেলায় প্রশাসনের পক্ষ সব ধরণের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রগুলো শুকনো খাবার,পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেটসহ সবধরণের সরঞ্জাম প্রস্তুত রাখা হয়েছে। দূর্যোগ মোকাবেলায় সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, ফায়ার সার্ভিস,পুলিশসহ আইনশৃংখলা বাহিনীর সাথে সমন্বয়ক রেখে কাজ করে যাচ্ছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *