BIGtheme.net http://bigtheme.net/ecommerce/opencart OpenCart Templates
সংবাদ শিরোনাম
Home / ইউনিয়ন সংবাদ / ফৌজদারহাট এলাকায় কবরস্থান দখল করে বসত বাড়ী নিমার্ণ করছে ভূমিদস্যুরা

ফৌজদারহাট এলাকায় কবরস্থান দখল করে বসত বাড়ী নিমার্ণ করছে ভূমিদস্যুরা

ছলিমপুর প্রতিনিধি,
২৯ এপ্রিল (সীতাকুণ্ড টাইমস ডটকম)-dakal-UngWz
সীতাকুন্ডের ছলিমপুর ফকিরহাটে সরকারী জায়গায় অনেক পুরনো আমলের একটি কবরস্থান দখল করে নির্মান করা হচ্ছে বসত বাড়ী এমনি অভিযোগ এলাকাবাসীর। শত বছরের পুরানো পূর্ব পুরুষদের  কবরস্থানটি কিছুদিন পূর্বে একটি মহল নিজেদের জায়গা বলে দাবী করে বসত ঘর নির্মান করছে ,এমনতাবস্থায় সৈয়দ মীর আউলিয়া বাড়ীর বাসিন্দা সফিউল আলম বাদী হয়ে চট্টগ্রাম আদালতের এর মাধ্যমে নির্মাণ কাজ বন্ধ করার জন্য ১৪৫ ধারা জারি করেন। তিনি বলেন ১৭ শতাংশ জায়গা  আমাদের পূর্বপুরুষ গণ সরকারী খাস জায়গায় পারিবারকি কবরস্থানের জন্য রেখে যান। এই কবরস্থানটি তে দীর্ঘদিন কয়েক বছর কোন মৃত্যব্যক্তিকে কবর না দিয়ে ফকির হাট কাজী পাড়ার দেওয়ানজী মসজিদের কবরস্থানে কবর দেওয়ায় এই কবরস্থান টি খালি মাঠ হয়ে পড়ে থাকায় এই পাড়ার বাসিন্দা আমিনুল হক,রাশেল,সোহেল,পাবেল,শিবলু গং হঠাৎ করে কারো সাথে কথা না বলে বাড়ী ঘর নির্মাণ কাজ শুরু করেন। আমি সাথে সাথে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা,সীতাকু- থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে এই বিষয়ে অবহত করি। পাশাপাশি গত ২২ এপ্রিল চট্টগ্রাম আদালত থেকে কাজ বন্ধ করার জন্য ১৪৫ ধারা জারি করি। এই নিষাদ্ধার মাধ্যমে সাথে সাথে উপজেলা কর্মকর্তা সাড়া দিয়ে ঘটনাস্থলে তদন্তদল পাঠিয়ে কাজ বন্ধ করার জন্য নির্দেশ দেন এবং ২ দিনের মধ্যে নির্মানাধীন ঘর বাড়ী ভেঙ্গে পেলার জন্য নির্দেশ দেন। কিন্তু তারা কোন আইন না মেনে তাদের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে । এবং একটি মহলের সহযোগীতায় তারা আইনের প্রতি অশ্রদ্ধাশীল হয়ে তাদের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। আমি প্রশাসনের প্রতি আবেদন জানাচ্ছি পবিত্র কবরস্থান রর্ক্ষাতে সহযোগীতা কামনা করছি।  এবং আমি আপনাদের অবগতির জন্য ঐ জায়গার খতিয়ানের দাগ নাম্বার গুলো সহ কিছু আবেদনের কাগজের নমুনা উপস্থাপন করছি ( আরএস খতিয়ানের ১৭৩ এর দাগ নং ৭৪৫ আর ১৬০২ এর দাগ নং ৭৪৬ বিএস খতিয়ান এর ১  এর দাগ ৩৬৪,৩৮৫)
চট্টগ্রাম আদালতের জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট্ েকাছে ফৌজদারী মিস মামলা দায়ের করা হয় যাহার মিস মামলা নং ৯৬৯/২০১৩ ইং তারিখ ২১ এপ্রিল ২০১৩ । আবেদন করা হয় ফৌজদারী কায্যবিধি আইনের ১৪৫ ধারায়। যাহা জেলা ম্যাজিষ্টেটে আবেদনের পরিপেক্ষিতে ১৪৫ ধারা প্রদান করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *